• সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:৫৬ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
Logo
                               
শিরোনাম:

গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে কৃষক

বিএম বাবলুর রহমান / ২৬ বার ভিজিট
আপডেটঃ রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২৩

কৃষি নির্ভর দেশে উৎপাদন খরচের তুলনায় মুনাফা কম হওয়ায় সঠিক পর্যবেক্ষণ না হওয়ায় কৃষকরা গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন। তথ্য মতে গত বছর ২০২২ সালে গম চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ ছিল ১৭৫ হেক্টর জমিতে কিন্তু লক্ষ্যমাত্রা বর্জন হয়ে গমের আবাদ হয়েছিল ১৫৫ হেক্টর জমি। সে কারনে এ বছর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫৫ হেক্টর জমিতে। এবছরের লক্ষমাত্রা অর্জন হয়েছে বলে জানা গেছে। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে তালা উপজেলায় ২০২২-২০২৩ সালে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে গমে চাষ ক্রমাগত ভাবে কমে যাচ্ছে। মাটি আবহাওয়া উপযোগী থাকায় ও উৎপাদন বৃদ্ধি হলেও গম চাষের প্রতি কৃষকদের সঠিক প্রশিক্ষণের উপর দায়িত্বহীনতার কারণে গম চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন কৃষকরা। নানাবিধ কারনে জেলায় গম চাষ ব্যাপক হুমকির মুখে পড়েছে।সাতক্ষীরা জেলার গম চাষে কৃষকদের ব্যাপক আগ্রহ থাকলেও বর্তমান সময়ে গম চাষে তাদেও (কৃষকরা) আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন। কৃষকরা মনে করেন গম চাষের চেয়ে অন্য ফসল তুলনায়মূলক ভাবে অনেক লাভ হয়,সে জন্য গমের পরিবর্তে অন্য ফসল চাষ করছে। উপজেলার মধ্যে খলিলনগর হাজরাকাটি, দোহার, মাগুরা আগোলঝাড়া, গমের চাষ চোখে পড়ার মতো নয় সামান্য কিছু গমের ক্ষেত দেখা গেছে। কৃষক মো. ইসমাইল হোসেন বলেন আমাকে তালা উপজেলা কৃষি অফিস থেকে গমের বীজ ফ্রী দিয়েছে আমি ৩৩ শতক জমিতে কৃষি অফিসের পরামর্শ অনুযায়ী গম চাষ করেছি বর্তমানে আমার ফসলের অবস্থা খুব ভালো আবহা স্বাভাবিক থাকলে ভালো ফলন পাবো ইনশাআল্লাহ। সফল কৃষক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, আমি সরকারি সহযোগিতা ১৫ শতক জমিতে গম চাষ করেছি জমিতে এসে ফসল দেখলে মনটা জুড়িয়ে যায় আগামী বছরে আমি সরকারি সহযোগিতা পেলে আরো বেশী জমিতে গমের চাষ করবো। নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক একাধিক কৃষক বলেন সরকারীভাবে আমার সহযোগিতা পেলে ধান চাষের পাশাপাশি গম চাষ করবো,ধান চাষের উপর কৃষকদের আগ্রহ ও ফলন বৃদ্ধি করতে যেমন বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে,একি ভাবে কৃষকদের গম চাষের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করলে সকল কৃষকরা গম চাষের প্রতি আগ্রহী হবে, কৃষকরা আরো বলেন অন্য ফসলের উন্নত মানের জাত ও বীজের গুনাগুণ, গুনগত মান সম্পর্কে আমরা সহজে জানতে পারি কিন্তু গমের জাত ও বীজের গুনাগুণ সম্পর্কে আমরা কিছুই জানিনা। তবে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে তাদের মাঝে প্রশিক্ষণ প্রদান করে গমের চাষ পদ্ধতি ও উন্নত জাতের বীজ সম্পর্কে অবগত বৃদ্ধি করলে ভালো হবে বলে ধারণা করেন কৃষকরা। সাতক্ষীরা জেলায় সাধারণ, কাঞ্চন, অতবর, অগ্রণী, প্রতিভা, সৌরভ জাতের গম চাষ করা হয় জেলার আবহাওয়া অনুযায়ী গমের চাষ করে কৃষকরা ভালো ফলন পেয়ে থাকেন। কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর তালা উপজেলার তত্ত¡াবধায়নে জাতপুর বøকের আগোলঝাড়া গ্রামের কৃষক মো. হালিম বিশ্বাসের রবি ২০২২-২৩ মৌসুমের একটি প্রদর্শনী প্লট দেখা গেছে। এই প্রদর্শনী প্লট এ বারী ৩৩ জাতের গমের চাষ করা হয়েছে। কিন্তু ইঁদুরের উপদ্রব বেড়ে চলেছে বলে জানা গেছে। তালা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাজিরা খাতুন জানান, প্রদর্শনী প্লট করে কিছু কিছু চাষিদের সার ও গমের বীজ বিনামূল্যে প্রদান করা হয়েছে তাছাড়া এ বছরে গম চাষের উপর কৃষকের প্রশিক্ষণ প্রদান করেছেন, সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা, সহায়তা কৃষকদের মাঝে প্রদান করা হবে।

add 1


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

পুরাতন খবর

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  

আজকের দিন-তারিখ

  • সোমবার (রাত ১০:৫৬)
  • ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • ৮ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি
  • ১৬ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (শীতকাল)