ঢাকা রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ৯ আশ্বিন ১৪২৯

সাফচাম্পিয়ান নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও ডিফেন্ডারস্ মাছুুরার বাড়িতে ফুুল ও মিষ্টি নিয়ে গেলেন সাতক্ষীরাা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূূন কবির

সেন্ট্রাল ডেস্ক
২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৩:৫৬
আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৭:১০
সাফচাম্পিয়ান নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও ডিফেন্ডারস্ মাছুুরার বাড়িতে ফুুল ও মিষ্টি নিয়ে গেলেন সাতক্ষীরাা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূূন কবির

    সাফচাম্পিয়ান নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও ডিফেন্ডারস্ মাছুুরার বাড়িতে ফুুল ও মিষ্টি নিয়ে গেলেন সাতক্ষীরাা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূূন কবিরস্টাফ রিপোর্টার: সাফফুুটবল চাম্পিয়ান  নারী  ফুুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা  খাতুন ও  ডিফের্ন্ডাস মাছুুরা খাতুুনের বাড়ীতে গিয়ে মিষ্টি  ও ফুলের শুুুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুুমায়ূন কবির। আাজ বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসক প্রথমে শহরের অদুুুরে বিনেরপোতা এলাাকায় সাফফুটল চাম্পিয়ান বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড় মাছুরা খাতুনের বাড়ীতে যান। তিনি ্এসময় মাছুরার বাবা ময়ের সাথে কথা বলেন। জেলা প্রশাসক এসময় সডক ও জনপদ বিভাগের উচ্ছেদ অভিযানে বিষেেয় সাংবাদিকদের বলেন যতদিন মাছুরাদের নতুন করে বাড়ি তৈরি করা না হবে ততদিন মাছুরাদের বাড়ী থেকে উচ্ছেদ করা হবে না।  তিনি এসময় মাছুরাদের বাডী থেকে উচ্ছেদের জন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগের চিহ্নিত করা স্থান মুছে দেন। এসময় সরকারী জমিতে বসবাস করা ফুটবলার মাছুরার বাড়ির নিচুস্থান ভরাটসহ তার পরিবারের সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূূন কবির পওে সাফচাম্পিয়ান বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাাতুুনের বাড়িতে যান। তিনি এ সময় সাবিনার মা ও পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেন এবং ফুল দিয়ে পরিবারের সদস্যদের শুভেচ্ছা জানান।এসময় তিনি অধিনায়ক সাবিনার পরিবারের সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এ সময় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা-তুজ-জোহরা, লাবসা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তা, জেলা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তাসহ গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত: ফুটবলার মাছুরা খাতুনের বাড়ী শহরের অদুরের বিনেরপোতায়। সাতক্ষীরা সড়ক ও জনপদ বিভাগ সম্প্রতি সড়ক প্রস্থস্তকরনের জন্য অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য স্থাপনা গুলিতে চিহিৃত করেন। এর মধ্যে ফুটবলার মাছুরের বাড়ীও বেড় পড়ে। বিষয়টি নিয়ে গতকাল থেকে পত্রপত্রিকায় খবর ছাপা হয় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এক বছর আগে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন মাছুরার দরিদ্র পিতার জন্য একখন্ড সরকারী খাসজমি বন্ধবস্ত দিলে সেখানে মাছুরার খেলার মাধ্যমে উপার্জিত অর্থ দিয়ে টিনসেডের একটি বাড়ী তৈরী করে। সেই বাড়ী সড়ক ও জনপদ বিভাগ উচ্ছেদের জন্য চিহিৃত করলে হতাশ হয়ে পড়ে পরিবারটি। খবর পেয়ে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির মাছুরাদের বাড়ীতে গিয়ে এই মূহুর্তে উচ্ছেদ হচ্ছে না জানালে স্বস্তি ফিরে আসে পরিবারটির মধ্যে। জেলা প্রশাসক এসময় মাছুরার পরিবারের জন্য সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস দেন।