ঢাকা শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮

জলাবদ্ধতায় হুমকির মুখে জেলার শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম

কান্ট্রি ডেস্ক
০৯ অক্টোবর ২০২১ ২২:০২
আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০২১ ০১:৩০
জলাবদ্ধতায় হুমকির মুখে জেলার শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম ভোমরা রাশেদা বেগম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ছাপিয়ে পানি উঠেছে শ্রেণিকক্ষে

সাতঘরিয়া ডেস্ক: সাতক্ষীরায় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিনায় পানি উঠে গেছে। পানিতে থৈ থৈ করছে জেলার সাত উপজেলার শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললেও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। স্কুল খোলার আনন্দে শিক্ষার্থীরা নতুন করে প্রস্তুতি নেয়। কিন্তু সেই আনন্দে এবার ছাঁই দিয়েছে আশ্বিনের বৃষ্টি। বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে জেলার সাত উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সাতক্ষীরা জেলা সদরের ভোমরা রাশেদা বেগম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ছাপিয়ে পানি উঠেছে শ্রেণিকক্ষে। বিদ্যালয়টির নিচতলা সম্পূর্ণ পানিতে নিমজ্জিত। মাঠের কোমর পানি পার হয়ে শ্রেণি কক্ষে যাওয়া কষ্টকর হয়ে পড়েছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। সিঁড়ির গোড়া পর্যন্ত পানি ওঠে যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের দোতলায়ও ক্লাস নেওয়া যাচ্ছে না। ফলে অন্যত্র ক্লাস করানোর কথা ভাবছে শিক্ষা অফিস। কিন্তু নিকটস্থ কোন ভবন না থাকায় সেটিও আপাতত সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে, সাতক্ষীরা শহরের নারীদের উচ্চ শিক্ষার একমাত্র বেসরকারি কলেজ ছফুরননেছা মহিলা কলেজ। বর্তমানে কলেজটি পানিতে ভাসছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই কলেজের শ্রেণিকক্ষে জমছে হাঁটু পানি।
ছফুরননেছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আশরাফুন নাহার বলেন, ‘সামান্য বৃষ্টি হলেই কলেজের ভিতরে হাঁটু পানি জমছে। পানি নিস্কাশনের সব পথ বন্ধ। শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যহত হচ্ছে। অফিসের প্রয়োজনী কাগজপত্রও নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এব্যাপারে জরুরীভাবে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করা দরকার।’
এদিকে, সাতক্ষীরা সদরের মাছখোলা হাইস্কুল, মাছখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পানিতে ডুবে আছে কয়েক মাস। এতদিনেও সমধান হয়নি। সম্প্রতি স্কুল খুলে দেওয়ার পর সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করলে দোতলায় ক্লাস নেওয়া হচ্ছে বলে জানান জেলা শিক্ষা অফিসার এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন। সাতক্ষীরা জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সামান্য বৃষ্টিতে জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি উঠে গেছে। জলাবদ্ধতার কারণে কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস করানো সম্ভব হচ্ছে না। বিকল্প ব্যবস্থায় ক্লাস করা যায় কিনা সে বিষয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।