ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৮০ হাজার শিক্ষকের পদ শূন্য

সেন্ট্রাল ডেস্ক
০৪ জানুয়ারি ২০২১ ১১:৪৭
আপডেট: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৯:০৭
বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৮০ হাজার শিক্ষকের পদ শূন্য প্রতিকী

দেশের বেসরকারি স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানে গত এক বছরে অন্তত ৮০ হাজার শিক্ষক পদ শূন্য হয়েছে। শিক্ষকদের চাকরি থেকে অবসর ও মৃত্যুজনিত কারণে এসব পদ শূন্য হয়। অথচ নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ দিতে পারেনি বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানরা বলছেন, করোনার কারণে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় শূন্য পদ নিয়ে তেমন সমস্যা হচ্ছে না। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পর পুরোদমে ক্লাস শুরু হলে শিক্ষক সংকটের কারণে একাডেমিক কার্যক্রম রীতিমত হোঁচট খাবে। এ অবস্থায় এনটিআরসিএ জানিয়েছে, উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা কেটে গেলেই দ্রুত বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের আবেদন চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি দেয়া হবে।

রোববার এ তথ্য জানান এনটিআরসিএ’র নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান মো. আশরাফ উদ্দিন। তিনি বলেন, আমি এ পদে নতুন যোগ দিয়েছি। এখনই এ বিষয়ে কথা বলা সমীচীন হবে না। তবে নিয়োগ সংক্রান্ত জটিলতা দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যেই কাজ করব।

এর আগে, গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগের ক্ষেত্রে এক মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় হাইকোর্ট। ১৫ জানুয়ারি সেই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হবে।

দেশের বেসরকারি স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানে গত এক বছরে অন্তত ৮০ হাজার শিক্ষক পদ শূন্য হয়েছে। শিক্ষকদের চাকরি থেকে অবসর ও মৃত্যুজনিত কারণে এসব পদ শূন্য হয়। অথচ নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ দিতে পারেনি বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানরা বলছেন, করোনার কারণে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় শূন্য পদ নিয়ে তেমন সমস্যা হচ্ছে না। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পর পুরোদমে ক্লাস শুরু হলে শিক্ষক সংকটের কারণে একাডেমিক কার্যক্রম রীতিমত হোঁচট খাবে। এ অবস্থায় এনটিআরসিএ জানিয়েছে, উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা কেটে গেলেই দ্রুত বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের আবেদন চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি দেয়া হবে।

রোববার এ তথ্য জানান এনটিআরসিএ’র নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান মো. আশরাফ উদ্দিন। তিনি বলেন, আমি এ পদে নতুন যোগ দিয়েছি। এখনই এ বিষয়ে কথা বলা সমীচীন হবে না। তবে নিয়োগ সংক্রান্ত জটিলতা দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যেই কাজ করব।

এর আগে, গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগের ক্ষেত্রে এক মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় হাইকোর্ট। ১৫ জানুয়ারি সেই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হবে।