ঢাকা রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮

পশুর নদীতে ৪০০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে কার্গোডুবি

কান্ট্রি ডেস্ক
৩০ মার্চ ২০২১ ২২:০৮
আপডেট: ১৮ এপ্রিল ২০২১ ০৪:০৮
পশুর নদীতে ৪০০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে কার্গোডুবি সংগৃহিত

মোংলা বন্দরের পশুর নদীতে ডুবে গেছে কয়লাবোঝাই একটি কার্গো জাহাজ। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বন্দর জেটির অপর পাশের কাটাখালী নামক এলাকায় জাহাজটি ডুবে যায়।

এ সময় ওই জাহাজটিতে থাকা ৯ জন স্টাফ ও একজন নিরাপত্তাকর্মী সাঁতরে কুলে উঠে যায়।

ডুবে যাওয়া কার্গো জাহাজ এমভি ইফসিয়া মাহিন’র মাস্টার মো. শাহালম জানান, মোংলা বন্দরের হাড়িবাড়িয়ার ৬ নম্বরে থাকা একটি বিদেশি জাহাজ থেকে ২৮ মার্চ (রবিবার) ভোরে কয়লাবোঝাই করেন তারা।

কার্গোটিতে প্রায় ৪শ মেট্রিক টন কয়লাবোঝাই শেষে সকাল ৯টার দিকে পশুর নদীর বানীশান্তা বাজার বয়ায় অবস্থান নেয়।

সেখানে থাকাকালে মঙ্গলবার দুপুরের আগে প্রচণ্ড পানির স্রোতে বয়া থেকে কার্গো জাহাজ বাঁধা রশি ছিঁড়ে যায়।

এ সময় এমভি ইফসিয়া মাহিনসহ প্রায় ১০/১২টি জাহাজ ওই বয়া থেকে ছুটে যায়। পরে ওই জাহাজগুলো দুর্ঘটনা এড়াতে যে যার মত নিরাপদে সরতে থাকে।

এ সময় ওই সকল কার্গোর মধ্যে একটির সঙ্গে ধাক্কা লাগে ইফসিয়া মাহিনের। এতে ইফসিয়া মাহিনের বাম পাশের হ্যাচ ফেটে যায়। তারপরও জাহাজটি বাঁচাতে মাস্টার শাহালম প্রাণপণ চেষ্টা করেন।

জাহাজটি ভাসতে ভাসতে বানীশান্তা থেকে কাটাখালী গেলে সেখানে ফাটা জায়গা হতে পানি উঠতে উঠতে একপর্যায়ে ডুবে যায়। জাহাজের স্টাফ ও এক নিরাপত্তা কর্মী সাঁতরে নদীর কুলে উঠে যান।

তবে ডুবন্ত জাহাজটি পশুর চ্যানেলের বাইরে চরের দিকে ডুবায় মূল চ্যানেল নিরাপদ রয়েছে বলে জানিয়েছে বন্দরের হারবার বিভাগ। ডুবে যাওয়া জাহাজটির কয়লা নিয়ে যশোরের নওয়াপাড়ায় যাওয়ার কথা ছিল। জাহাজটির ধারণক্ষমতা ছিল ৫শ মে. টন। আর বোঝাই করা হয়েছিল ৪শ মে. টন।

এর আগে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাতে মোংলা বন্দরের পশুর নদীতে ৭শ মে. টন কয়লা নিয়ে ডুবে যায় এমভি বিবি-১১৪৮ নামক একটি কার্গো জাহাজ।