ঢাকা রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮

অতিপরিবর্তনে নেপালের কাছে হার

স্পোর্টস ডেস্ক
৩১ মার্চ ২০২১ ১১:৫৬
আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০২১ ১৯:৪২
অতিপরিবর্তনে নেপালের কাছে হার প্রতিকী

নেপালের ত্রিদেশীয় কাপকে অন্য চোখে দেখছিলেন জেমি ডে। জুনে বিশ্বকাপ বাছাইকে টার্গেট করে তরুণদের পরখ করতে চেয়েছিলেন। সেই সঙ্গে পজিশনের পরীক্ষাও করছিলেন। সবই হলো, কিন্তু অতিপরীক্ষায় শেষ পর্যন্ত শিরোপাটাই জেতা হলো না বাংলাদেশের। নেপালের কাছে সোমবারের ফাইনালে ১-২ গোলে হেরে গেছে জামাল ভূঁইয়ারা। এতে বাংলাদেশ ফুটবলে শিরোপা খরা আরও দীর্ঘায়িত হলো।

একাদশে মাত্র দুজন ডিফেন্ডার রেখে মাঠে নামে দশরথ স্টেডিয়ামের ফাইনাল খেলতে নামে বাংলাদেশ। কোচ জেমি ডে’র এই সিদ্ধান্ত যে কোনো ফুটবলভক্তকেই বিস্মিত করবে। বিস্মিত করেছে নেপালের কোচ বালগোপাল মহারাজনকেও। ম্যাচ শেষে সাবেক এই নেপালি ফুটবলার বলেন, ‘ম্যাচের এক ঘণ্টা আগে বাংলাদেশের একাদশে দেখলাম ছয়জন ফরোয়ার্ড, মাত্র দুজন ডিফেন্সে, তখন খুবই অবাক হয়েছিলাম। ভেবেছিলাম তারা শুরু থেকেই খুবই আক্রমণাত্মক হবে কিন্তু মাঠে তেমন কিছু দেখিনি।’

গত দুই ম্যাচের পারফরম্যান্স বিবেচনা করে একাদশ সাজিয়েছিলেন জেমি ডে। ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে গোল করা ফরোয়ার্ড সাদ উদ্দিনকে খেলান ফুল ব্যাকে। অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার ইয়াসিন আরাফাত, টুটুল হোসেন বাদশাকেও শুরুর একাদশে রাখেননি। এছাড়া ফরোয়ার্ড সুফিল ও আব্দুল্লাহকেও বাইরে রাখেন। সিনিয়র ফুটবলার ও প্রথম ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়া সোহেল রানাকে খেলানোই হয়নি। স্বাভাবিকভাবেই রক্ষণভাগ দুর্বল হয়ে পড়ে বাংলাদেশের। সেই দুর্বলতার সুযোগ নিয়েই ৪২ মিনিটের মধ্যে দুই গোলে এগিয়ে যায় নেপাল। দ্বিতীয়ার্ধে অভিজ্ঞদের ফিরিয়ে আনায় অনেকটা স্বাভাবিক চেহারা পায় বাংলাদেশ দল। সুফিল, টুটুল, আব্দুল্লাহ, ইয়াসিন ও মাসুক মিয়া জনিকে নামান কোচ। ৭৫ থেকে ৯০ মিনিটে নিয়ন্ত্রণ নেয় ম্যাচের। তাতে ৮২ মিনিটে জামালের কর্নার থেকে হেডে গোল করে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান সুফিল। ৮৭ মিনিটে জামালের শট পোস্টের একটু ওপর দিয়ে যায়।

নেপালের বিপক্ষে গত চার ম্যাচে এই প্রথম হারল বাংলাদেশ। গত নভেম্বরে বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকায় আয়োজিত দুই ম্যাচের দুটিতেই জিতেছিল বাংলাদেশ নেপালের বিপক্ষে।